পার হলো একই প্রতিষ্ঠানে কানাডার (প্রফেশনাল ) চাকরি জীবনের ১০টি বছর !

আজকে নিজের কাজে যেমন ব্যস্ততা ছিল, তেমনি আমার এক খুব young এবং নতুন এক কলিগের এক ক্লায়েন্ট মারা গেছেন। এব্যাপারে তাকে হেল্প করতে হয়েছে, তাকে শান্তনাও দিতে হয়েছে। এ নিয়ে গত ২ সপ্তাহে তার দুইটি ক্লায়েন্ট মারা গেলো। বুজতেই পারছেন তার মনের অবস্থা। তার সাথে প্রায় ৪০ মিনিটের ফোনালাপ সেরেই পেলাম জাকারিয়া ভাইয়ের ফোন। তখনি মনে পড়লো আজকে তো ৯ ই জুলাই, ঠিক ১০ বছর আগে এই দিনে যোগ দিয়েছিলাম Reconnect এ। অনেক ধন্যবাদ জাকারিয়া ভাই, নিজের কাজ এবং আনুষাঙ্গিক ব্যস্ততার মধ্যেও সময় করে এই দিনটির কথা মনে করিয়ে দেওয়ার জন্য। আমার প্রফেশনে আরো আগের থেকে ঢুকলেও Reconnect Community Health Servicesএ ১০ বছর পূরণ হলো। Reconnect LHIN এর মাধ্যমে Minstry of Health এর ফান্ডেড। আমি এখানকার একজন কেস ম্যানেজার। ১০ বছর পার করা হাতে গোনা কয়েকজনের মধ্যে আমি একজন।

মনে হয় যেন দেখতে দেখতে ১০ বছর কেটে গেলো। এই ১০ বছরের পথ পরিক্রমায় অনেক কিছু জানা হয়েছে, অনেক কিছু শেখা হয়েছে এবং দিনে দিনে এটাও আবিষ্কার করছি যে এখনো কতকিছু জানি না। যাহোক তারপরেও যে সম্মানের সাথে এই ১০টি বছর পার করলাম সে জন্য পরমকরুণাময়কে ধন্যবাদ। এবং সঙ্গে সঙ্গে আমার Reconnect পরিবার, আমাদের প্রতিটি ক্লায়েন্ট এবং আপনাদের সবাইকেও অনেক ধন্যবাদ। আপনাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে কিছু না কিছু শিখেছি, এবং ভালো করে মনে আছে কবে কোনদিন কার কাছ থেকে কি শিখেছিলাম। I was not alone.

সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছায় ১০ টি বছর ভালোভাবে কাটলেও চড়াই উৎরাই কিন্তু ছিলো। ক্ষমতার পরিবর্তন, পদ্ধতিগত পরিবর্তন, ফান্ডিংয়ের সংকোচন এবং চাকরি ছাটাই ইত্যাদি ছিলো। অনেক সহকর্মীর চাকরিও গেছে । যাহোক, আপনাদের দোয়া আর কিছুটা ভাগ্যেরও ব্যাপার আছে; যে কারণে তেমন কোনো সমস্যা হয়নি। তবে হাঁ, আমার না জানা বা অজ্ঞতার কারণে হয়তোবা কখনো কোনো কাজে ঘাটতি হতে পারে কিন্তু আমার heartfelt effort এর কোনো কমতি ছিল না। আর দিনশেষে আমার প্রথম accounteblity আমি নিজেই, সে জন্য আমার সুপারভাইজেশনের তেমন প্রয়জন হয় না। কোন কাজে গাফিলতি হলে নিজের কাছে অনেক গিল্টি ফিলিং মনে হয়। এই জিনিসটি আমি কোনো একজনের কাছ থেকে শিখেছিলাম এবং এটি আমার একটি বড়ো টুল যেটি আমার এই দীর্ঘ পথ চলায় সব সময় সহায়তা করেছে।

সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ যে, Good Shepheerd, OW, ODSP বা City সবজায়গাতে ঘুরে ফিরে তিনি আমাকে আমার মনের মতো জায়গায় অবস্থান দিয়েছেন। আমার যেই জিনিষটা খুব একটা পছন্দ না সেটি দিনের পর দিন করে যাওয়ার থেকে বেশি কষ্টের বোধ হয় আর কিছু নেই। এই ব্যাপারে কানাডার স্কীলড ইমিগ্র্যান্ট সেটেলমেন্ট পদ্ধতিতে এখনো ঘাটতি আছে, যদিও পরিস্থিতি আমাদের শুরুর সময় থেকে অনেক ভালো। সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমত যে এর মধ্যে তিনি আমাকে আমার পছন্দের একটি কাজের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

আমি CBN পত্রিকায় সাক্ষাৎকারে Job Satisfection এর ব্যাপারে বলেছিলাম যে, আমার কাছে মনের মতো বা satisfectory job বলতে সেই চাকরীকেই বোঝায়, যেই চাকরিতে প্রতি শুক্রবার যেমন মন উৎফুল্ল থাকে দুদিন ছুটি এবং পরিবার পরিজন নিয়ে সময় কাটানোর জন্য, ঠিক তেমনি রবিবার সন্ধ্যা থেকে মনে হয় কালকে কখন কাজ শুরু করবো। এবং আপনাদের দোয়া ও সৃষ্টিকর্তার কৃপায় আমার চাকরিটি তেমনই। পুরা অফিসটি যেন একটি পরিবার, বেতন ভাতাও ভালোভাবে চলার জন্য যথেষ্ট, এবং এগুলিই আমার জন্য যথেষ্ট। সবাই দোয়া করবেন যেন এভাবে বাকি দিগুলি কেটে যায়।

Success আমার কাছে অন্যে আমার succees এর কি measurement করলো সেটি নয়, বরং আমায় আমার কাঙ্খিত জিনিস পেলাম কি না সেটিই। আমার কাঙ্খিত জিনিস অন্যের কাছে Success নাও হতে পারে, তাতে কি আসে যায়। নিজের potential এর সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে পারাটাইতো বড়ো success . আর সাথে সাথে নিজের চাহিদা মিটিয়ে যদি আসে পাশের কারো জন্য কিছু করা যায় সেটাই অনেক কিছু। এখানে শুরুতে অনেক স্ট্রাগগলে করেছি, তখন ভাবতাম যদি সৃষ্টকর্তা কোনো মতে একটা ব্যবস্থা করে তাহলে চেষ্টা করবো অন্যের যেন আমার মতো স্ট্রাগগলে না করতে হয়। আল্লাহতালা আমার সেই আশা পূরণ করেছেন।

আমি একটি প্রতিষ্ঠানের এনজন সামান্য কেস ম্যানেজার। তারপরেও সেই অবস্থান থেকে বিগত ১০/১২ বছরে আমার জীবনে ঘটে যাওয়া স্ট্রাগলের অভিজ্ঞতা দিয়ে অনেকের জীবনের স্ট্রাগল কমাতে হেল্প করেছি। আমার বার বার মনে পড়ে মাদার টিরেসার কথা। কোনো লিডারের জন্য অপেক্ষা কোরো না, শুরু করো এবং তুমি তোমার পার্টটি করো। আর কারো জন্য কিছু করতে আপনাকে সব সময় কোনো হোমরা চোমরা হতে হবে না। এই ১০/১২ বছরে প্রায় শতজন প্রফেশনালকে মেন্টরিং করার সুযোগ পেয়েছি এবং সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছায় তাদের শুধু চাকরিই হয়নি, বরং অনেকে আমার থেকে ভালো চাকরি পেয়েছেন, এবং দুই একজনের কাছে আমি ট্রেনিংএও গিয়েছি। আমি একজন সাধারণ মানুষ, একটি সাধারণ চাকরি তাই এর থেকে আর বড়ো পাওয়া কি হতে পারে।

জীবনে কমবেশি ঝামেলা তো থাকেই। তবে সব মিলিয়ে আমি সন্তুষ্ট এবং সৃষ্টিকর্তা ও আপনাদের কাছে দোয়া চাই যাতে করে জীবনের বাকি দিনগুলি যেন এভাবে কেটে যায়, আর বেশি কিছু চাওয়ার নেই। আজ বাদে কাল যদি আমার মৃত্যু হয় তাহলে আমার পরিবার পরিজন আমাকে হারাবে, আমার ছোট বাবা হারা ভাগ্নেটির adult life দেখে যেতে পারবো না, এই regret ছাড়া আর কোনো regret থাকবে না। জীবনের ছোট ছোট অধিকাংশ স্বপ্নেই পূরণ হয়েছে।

সবাই ভালো থাকবেন এবং দোয়া করবেন।
মুকুল

2,636 total views, 90 views today

প্রকাশিত লেখা, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। পোষ্ট লেখক অথবা মন্তব্যকারীর অনুমতি না নিয়ে পোস্টের অথবা মন্তব্যের আংশিক বা পুরোটা কোন মিডিয়ায় পুনঃপ্রকাশ করা যাবে না।

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *