আপনি কি প্রফেশনাল চাকরি খুঁজছেন ?

আমরা মোটামুটি সবাই জানি কানাডাতে স্বজনপ্রীতি নেই ঠিকই কিন্তু নেটওয়ার্কিং প্রীতি আছে প্রবল ভাবে। আমরা জানি যে কানাডাতে চাকরি খোঁজার ক্ষেত্রে নেটওয়ার্কিং একটি অতিপ্রয়জোনীয় জিনিস। আর সেই চাকরিটি যদি প্রফেশনাল কোনো চাকরি হয় তাহলে তো কোথায়ই নেই। আর প্রফেশনাল লোকজনের সাথে কানেকশন করতে হলে আপনার পরিচিতির মাধ্যমটা খুব পরিচ্ছন্ন বা আকর্ষণীয় হতে হবে। আর এই মাধ্যম হতে পারে আপনার রেসুমে, ফেইজবুক পেজ, ইনস্টাগ্রাম, লিংকডইন, টুইটার ইত্যাদি, তবে এক্ষেত্রে আমি শুধু FB পেজ নিয়েই কিছু গুরুত্বপূর্ণ কথা বলতে চাই। কথাগুলি আমি হয়তো আগেও লিখেছি, তার পরেও আবার লিখছি এই কারণে যে এগুলি অনেকের পড়া পর্যন্তই থেকে জাস্ছে কিন্তু কার্যে আর পরিণত হস্ছে না।
 
আপনার FB পেজ যেমন আপনার পোটেনশিয়াল এমপ্লয়ারের নজরে পড়তে পারে তেমনি আপনার প্রয়জনীয় নেটওয়ার্কের নজরেও পড়বে। তাই আপনি আপনার FB টি আহামরি সুন্দর না করতে পারলেও, অন্তত আপনার নামের সাথে একটি ডিসেন্ট ছবি, আপনার শিক্ষগত যোগ্যতা, আপনার বর্তমান এবং পূর্ববর্তী কাজের অভিজ্ঞতা, আপনার বর্তমান রেসিডেন্সি এবং পারলে আপনার Personal Trait সম্মন্ধে অন্তত একটা লাইন লিখুন। আর বিরত থাকুন, বিতর্কিত কোনো বাণী, বিতর্কিত কোনো ছবি, রাজনৈতিক অস্লিল কোনো বক্তব্য, উগ্রবাদী কথাবার্তা বা তথ্য, উগ্র কোনো ছবি ইত্যাদি জিনিস এভোয়েড করুন, কারণ আপনি জানেন না যে, যে বেক্তির কাছে আপনার প্রয়জন অথবা যে বেক্তি আপনাকে একজন পোটেনশিয়াল প্রাথী হিসাবে খুজবে সে হয়তো ওই বিষয়গুলি পছন্দ নাও করতে পারে।
 
আমরা যতই বলি না কেন বা চেষ্টা করে জাসছি আমাদেরকে ১০০% নিউট্রাল রাখার সেটা সবার ক্ষেত্রে সব সময় হয়ে উঠছে না, তাই ওই সমস্ত বিষয়ের কারণে কেউ কেউ কিছুটা জাজমেন্টাল হয়ে যায়, আর সেখানেই বিপদ, কারণ সে যত বড়োই গরুরুত্বপূর্ণ বেক্তি হন না কেন এমনি তার নেটওয়ার্ক থেকে বঞ্চিত হলেন, আপনার যথাযত যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও।
আপনার যদি নেটওয়ার্কিং বা কানেকশনের দরকার না থাকে, বা চাকরিরই দরকার না থাকে তাহলে আপনাকে এগুলি নিয়েও ভাবতে হবে না। যেমন ধরুন একজনের FB প্রফাইল দেখে অথবা কোনো গ্রূপের কার্যক্রম দেখে মনে করলেন ওই বেক্তি বা গুরুপের সাথে যোগাযোগ রাখলে কাজে দিবে, তাই ধাম করে একটি ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে দিলেন। কিন্তু ওই বেক্তি আপনার প্রোফাইলে গিয়ে যদি দেখেন আপনার নাম ছাড়া, আপনি কোথায় থাকেন, কি কাজ করেন, কি পড়াশুনা বা আদৌ পড়াশুনা আছে কি না, আপনার মানসিকতা কেমন এর কিছুই ওখানে লেখা নেই তাহলে সেই লোকটা আপনাকে কি মনে করবে? এটাতো এক ধরণের পরিচয় গোপন করে কারোর কাছে বন্ধুত্বের আবেদনের মতো।
 
আবার ধরুন আপনার FBএ কোনো বিশেষ রাজনৈতিক পার্টির বড়ো বড়ো ছবি, স্লোগান, বিতর্কিত বক্তব্য, বেক্তিত্বহীন কথাবার্তা বা উগ্র কোনো ছবি দেওয়া তাহলে যদি কোনো লোক এমন একজন দক্ষ লোক খুঁজছেন এবং আপনার কোনো পরিচিত জন আপনার নাম তাকে দিলেন, এখন কোনোক্রমে ওই বেক্তি যদি আপনার FB চলে যায়, আর ঐসমস্ত জিনিস দেখে তাহলে কি আর সে আপনার পিছনে ছুটবে।
 
অরে ভাই/বোন, FB তো থাকেন বলতে গেলে সারাক্ষন, তা ওই সারাক্ষনের মধ্যে থেকে কি মাত্র ১৫/২০ মিনিট সময় বের করে নিজের যথাযত পরিচিতিটা আপনার প্রোফাইলে লিখতে পারেন না ! আর অন্তত যে কদিন চাকরি খুঁজছেন সেই কয়দিন কি FBটা একটু প্রফেশনালের মতো রাখা যায় না।
 
আমি একজন অপরিচিত মানুষ হয়ে যদি আপনার বাসার দরোজায় গিয়ে সোজা দাঁড়িয়ে শুধুমাত্র আমার নামটা বলে বলি যে, তোমার বনধু হতে চাই, অথবা তোমার সাথে নেটওয়ার্কিং করতে চাই তাহলে আপনি আমাকে কি করবেন ? আমাকে কি বলতে হবে না, আমি কে, কি করি, কি উদ্যেশে এসেছি, কেন নেটওয়ার্ক করতে চাই, আমি থাকি কোথায় থাকি ইত্যাদি তো আমাকে জানাতে হবে তাই না ? তা না হলে আপনি বুঝবেন কি করে যে আপনি একজন প্রফেশনাল না প্রফেশনাল স্ক্যামবাজ!
 
আমার যখন ভালো একটা জিনিষ খুবই দরকার এবং বাজার যখন খুবই কড়া তখনকি আমাকে চারিদিক থেকে চৌকষ করে তুলতে হবে না, নাকি আমি আমার এমপ্লয়ার বা আমার যাকে প্রয়জন তাকে আমার সম্মন্ধে যথাযত পরিচয়ও না দিয়ে একটি ধাঁধার মধ্যে ফেলল দিবো।
জাস্ট অল্প একটু সময় এবং ইচ্ছা থাকলেই নিজেকে সুন্দর করে উপস্থাপন করা যায়, সে বাস্তবে হোক আর সাইবার জাগতেই হোক !
 
ধন্যবাদ,
মুকুল

5,883 total views, 5 views today

প্রকাশিত লেখা, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। পোষ্ট লেখক অথবা মন্তব্যকারীর অনুমতি না নিয়ে পোস্টের অথবা মন্তব্যের আংশিক বা পুরোটা কোন মিডিয়ায় পুনঃপ্রকাশ করা যাবে না।

4 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *