মানুষত্বের একটা অপমৃত্যু

বিশ্ব কবির ‘সোনার বাংলা’,
নজরুলের বাংলাদেশ,
জীবনানন্দের ‘রূপসী বাংলা’,
রূপের যে তার নেই কো শেষ।

কিন্তু এ কোন দেশ আমার !!!

লং উইকেন্ডে শেষ দিন। সন্ধ্যাবেলা – অনেকটা অলস সন্ধ্যা। ফেসবুক ঘাঁটছিলাম। হঠাৎ করে মনোযোগটা কেড়ে কিনো একটা ছোট্ট খবর। “সুনামগঞ্জে তুহিন হত্যা।

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে তুহিন নামে পাঁচ বছরের এক শিশুকে হ’ত্যা করে গাছের সঙ্গে মরদেহ ঝুলিয়ে রেখেছে ঘা’তকরা। শিশু তুহিনের পেটে একটি নয়, বরং দুটি ছুরি ঢুকিয়ে হ’ত্যা করে ঘা’তকেরা। অমানবিক ভাবে তার দুই কান ও যৌ’না’ঙ্গও কে’টে নেওয়া হয়েছে। ওই শিশুর নিথর দেহ ঝুলিয়ে রাখা হয় কদম গাছের ডালে। কি নির্মম এই হত্যা কান্ড ? আমাদের মনুষত্যের একি অধঃপতন ?

পাঁচ বছরের একটা শিশুর সাথে কারো কোনো শত্রুতা থাকার কথা নয়। হয়তো পারিবারিক ভাবে শত্রুতার জেরেই হয়তো এই হত্যাকান্ড। কিন্তু পারিবারিক রেশের বলি একটা নিষ্পাপ শিশু,ঘাতকের হাতটা কি একটি বারের জন্যও কাঁপলো না ? – মানুষত্বের আরো একটা অপমৃত্যু।

1,906 total views, 2 views today

প্রকাশিত লেখা, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর। পোষ্ট লেখক অথবা মন্তব্যকারীর অনুমতি না নিয়ে পোস্টের অথবা মন্তব্যের আংশিক বা পুরোটা কোন মিডিয়ায় পুনঃপ্রকাশ করা যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *